দাঁতের কালো দাগ দূর করার উপায় ও ১০টি ঘরোয়া টিপস

1039
সম্ভব ডটকম

আমাদের অনেককেই দাঁত হলুদ হওয়ার কারণে অনেক সময় বিব্রত হতে হয়। সমাজে চলাফেরায় অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায় দাঁতের এই হলদেটে দাগ। নানা কারণে দাঁতে এই হলুদ দাগ দেখা দিতে পারে। দাঁতের অযত্ন, তামাক সেবন, নিয়মিত ওষুধ সেবন, পান মশলা কিংবা মদ্যপানের কারণে চলে যেতে পারে দাঁতের স্বাভাবিক শুভ্রতা।

যারা দাঁত হলুদ হয়ে যাওয়ার সমস্যায় ভুগছেন তাঁরা নানা উপায়ে দাঁতের স্বাভাবিক শুভ্রতা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন। নানা ধরনের টুথপেস্ট, পাউডার, ফ্লস— অনেক রকমের কৌশল তাঁরা এজন্য প্রয়োগ করে থাকেন। কিন্তু কোনটাতেই খুব সুফল মেলে না। সেক্ষেত্রে তারা খোঁজেন এমন কোন উপায় যা নিশ্চিতভাবে এবং দ্রুত হলুদ দাঁতকে সাদা করে তুলতে পারে। সত্যি কি সেরকম কোনও উপায় রয়েছে?

দাঁত পরিষ্কার করার উপায় কি

ব্রাশ

আমারা অনেকে প্রতিদিন সকাল ছাড়া ব্রাশ করিনা! তবে এটা একদম ঠিক না। নিয়মিত ৩ বেলা খাবারের পরপরই ব্রাশ করতে হবে। ফ্লুরাইডযুক্ত টুথপেস্ট ব্যবহার করতে হবে। ব্রাশ ও টুথপেস্ট প্রতি ৩ মাস পরপর পাল্টাতে হবে।

ফ্লসিং

ব্রাশ করার পর অবশ্যই ফ্লস ব্যবহার করতে হবে। এতে দাঁতের ভেতরের আঁটকে থাকা খাবার বের হয়ে আসবে।

মাউথ ওয়াশ

একটি ভালো এন্টিসেপটিক মাউথ ওয়াশ দিয়ে কুলি করে নিবেন। এতে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হয়।

পানি পান করুন

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করবেন যাতে মুখ ভেজা থাকে। পানি খাদ্যদ্রব্য মুখ থেকে ধুয়ে নিয়ে যায়। এতে খাবার আঁটকে থাকেনা। ফলে ব্যাকটেরিয়াও জন্মাতে পারেনা আর দাঁতে দুর্গন্ধ বা দাগ হয় না। আয়রনযুক্ত কলের পানি খাবেন না। এতে দাঁত হলুদ বা কালচে বর্ণ ধারণ করে।

এড়িয়ে চলবেন যেগুলো

কফি, চা, ধুমপান, মদ বর্জন করুন। অতিরিক্ত রঙীন খাবার খাওয়ার পরপরই দাঁত পরিষ্কার করুন।

হলুদ দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায়

কমলা লেবু

প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কমলা লেবুর ফালি নিয়ে দাঁতে ঘষুন। এমনটা করলেই দেখবেন সমস্যা কমে যাবে। এ ফলটিতে উপস্থিত ভিটামিন-সি এবং ক্যালসিয়াম রাতভর দাঁতে জমতে থাকা মাইক্রোঅর্গানিজিমের সঙ্গে লড়াই চালায়। ফলে দাঁতের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি ধীরে ধীরে হলদে আবরণও সরে যেতে শুরু করে।

স্ট্রবেরি

স্ট্রেবেরিতেও রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন-সি, যা এই ধরনের সমস্যা কমাতে দারুন কাজে আসে। এক্ষেত্রে কয়েকটি স্ট্রবেরিকে পিষে পেস্ট তৈরি করুন। তারপর সেই পেস্ট দাঁতে লাগান। এমনটা কয়েক সপ্তাহ করলেই দেখবেন হলদেভাব কমে গিয়ে দাঁত আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে।

দাঁত সাদা করতে বেকিং পাউডার ও লেবু

বেকিং সোডা বা পাউডার এটি দাঁত সাদা করতে সবচেয়ে কার্যকরী। একটি ব্রাশ ভিজিয়ে নিয়ে পেস্টের সঙ্গে কিছুটা বেকিং পাউড়ার নিয়ে ও দাঁত মাজতে পারেন। অন্যদিকে, লেবু দাঁত তো পরিষ্কার করেই দাঁতের রঙ ফিরিয়ে আনতেও সাহায্য করে। এক টুকরো লেবু নিয়ে দাঁতে ঘষতে থাকুন। ৫-৬ মিনিট পর কুলি করে ফেলুন। দিনে দু বার দাঁত ব্রাশ করার পর এই কাজ করুন, ভালো ফল পাবেন।

তাছাড়া নিচের বেকিং পাওডার ও লেবুর এই মিশ্রণটি দেখতে পারেন

একটি পাত্রে এক চা চামচ বেকিং সোডা নিন। এবার তাতে মিশিয়ে দিন অর্ধেক করে কাটা একটি পাতি লেবুর রস। এবার চামচে করে মিশিয়ে নিন দু’টি উপাদান। দেখবেন, মিশ্রণটি প্রাথমিকভাবে ফেনা ফেনা আকার ধারণ করছে। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই দেখবেন মিশ্রণটির আকার হয়েছে একটি ঘন তরলের মতো। এবার এই তরল আঙুলে করে তুলে দাঁতের উপরে লাগিয়ে দিন। মনে রাখবেন, দাঁত মাজার মতো করে দাঁতে মিশ্রণটি ঘষার প্রয়োজন নেই কোন। মিশ্রণটি শুধু লাগিয়ে রাখুন দাঁতের উপরে।

তিন মিনিট পরে কুলি করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এবার তাকান আয়নার দিকে। দেখবেন আপনার হলুদ দাঁত সাদা হয়ে গেছে। দাঁত সাদা করার এটি একটি পরীক্ষিত ঘরোয়া টোটকা। দাঁতের বা মুখের কোন ক্ষতি হওয়ার কোন সম্ভাবনা এতে নেই। সকালে ঘুম থেকে উঠে কিংবা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত ব্রাশের সময় এটা করা যেতে পারে। আর এই কৌশলের কার্যকারিতা কতখানি, তা নিজেই যাচাই করে একবার দেখে নিন এখনই।

দুগ্ধজাত খাবার

নিয়মিত দুধ, দুগ্ধজাত খাবার, দধি খেলে মিনারেল ও অ্যানামেলের প্রভাবে দাঁত থাকবে সুন্দর, হলুদ দাগ বা বিবর্ণতার সম্ভাবনা কমে যাবে।আর আপনার হাসিতে মুক্তো ঝরবে, সন্দেহ নেই।

লবণ

আজকাল লবণযুক্ত টুথপেস্টের বেশ বিজ্ঞাপন দেখা যায়। লবণ মাঢ়ি থেকে রক্তপাত বন্ধ করে ও দাঁত মজবুত করে। লবণ দাঁত সাদা করতেও সাহায্য করে। সকালে ও রাতে দাঁত ব্রাশ করার পর দাঁতে লবণ প্রয়োগ করুন। আঙুলে লবণ নিয়ে দাঁতে ঘষতে থাকুন। ৫-৬ মিনিট পর কুলি করে ফেলুন। এটাও টানা ৭ দিন করতে হবে।

তুলসি পাতা

বেশি করে তুলসি পাতা নিয়ে সেগুলিকে রোদে শুকিয়ে নিন। পাতাগুলো একেবারে শুকিয়ে গেলে তখন সেগুলি বেটে একটা পাউডার বানিয়ে ফেলুন। এই পাউডারের সঙ্গে টুথপেস্ট মিশিয়ে ব্রাশ করলে দাঁতের হলুদভাব একেবারে চলে যায়। সেই সঙ্গে পায়োরিয়া, ক্যাভিটিসহ আরও সব দাঁতের রোগের প্রকোপও হ্রাস পায়।

আপেল

প্রতিদিন আপেল খাওয়া শুরু করুন। তাহলেই দেখবেন দাঁতের হলুদভাব একেবারে কমে যাবে। আসলে এই ফলটিতে উপস্থিত একাধিক স্বাস্থ্যকর অ্যাসিড দাঁতের হলদেটে আবরণকে নিমিষে তুলে দিতে দারুন কাজে আসে।

কলার খোসা

কলার খোসা ফেলনা জিনিস হলেও এটা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। কলা খাবার পর খোসাটি না ফেলে দাঁত সাদা করার কাজে লাগান। কলার খোসার ভেতর দিকের অংশ দাঁতে ঘষতে থাকুন। ৭ দিনের আগেই পাবেন ঝকঝকে সাদা দাঁত।

এই নিয়ম গুলো ফলো করলে, আপনি এক সপ্তাহের কম সময়ের মধ্যে ভালো ঝকঝকে তকতকে সাদা দাঁত হয়ে যাবে। ইনশাআল্লাহ।

সম্ভব ডটকম, সিমলা জাহান পুস্প।