শুধু পর্ন তারকা নয় সানি লিওন একজন সফল ব্যবসায়ীও

212
সানি লিওন

সানি লিওন এখন কোন সাধারণ তারকা নন। ৩৫ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী এখন অনলাইন এবং অফলাইনে তুমুল জনপ্রিয়। সানি লিওন পর্ন তারকা হিসাবে ক্রমেই হয়ে উঠছেন জাঁদরেল অভিনেত্রী। এসবের পাশাপাশি ব্যবসায়ী সানি লিওনের খবর কয়জন জানে? অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি ব্যবসাও পরিচালনা করেন। এবং তা ড্যানিয়েল ওয়েবারের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার আগে থেকেই।

সানি লিওন বলেন, “আমার যখন ৮ থেকে ১০ বছর বয়স ছিল তখন থেকেই বড়ভাই এবং প্রতিবেশী একজনের সঙ্গে রাস্তায় জমে থাকা তুষার পরিস্কার করে উপার্জন শুরু করেছিলাম। রাস্তায় প্রায় দুইফুট বরফ জমে যেত। তার জন্য আমাদের দ্বিগুণ পরিশ্রম করতে হতো; আর পারিশ্রমিকও ছিল দ্বিগুণ। আমি এমন একজন মেয়ে সানি লিওন, হাইস্কুলে যাওয়ার আগে যে নিজের বাস্কেটবল এবং সকার টিমের জন্য অর্থসংগ্রহ করতে বিভিন্ন পণ্য বিক্রয় করতাম।”

হাইস্কুল জীবনেও তার ব্যবসার প্রতি আগ্রহ বজায় থাকে। সেই সময় তিনি ক্যালিফর্নিয়ায় থাকেন। সেখানে ‘ফিউচার বিজনেস লিডারর্স অব আমেরিকা’ নামে একটি ক্লাবে তিনি যোগদান করেন। সেই ক্লাব থেকে উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন কনফারেন্সে যাওয়ার সুযোগ হয় তার। এগুলো ছিল তার ব্যবসার জন্য বিরাট অনুপ্রেরণা।

আরো পড়ুন: এটাই হলো আমার মা-কে দেওয়া সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার!

তরুণ বয়সে তিনি তার প্রথম ব্যবসায়িক উদ্যোগ নেন। তার ভাষায়, “যখন আমি প্রাপ্তবয়স্ক হই তখন বুঝতে পারি পর্নোগ্রাফি একটি বড় ব্যবসা। তখন আমি পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশ করার জন্য আমার একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট তৈরির কথা ভাবি। কারণ এই ব্যবসাকে সম্পূর্ণ আমার ইমেজ, আমার শরীর এবং আমার আমার ব্র্যান্ড দ্বারা প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছি।”

যা ভাবা সেই কাজ। ওয়েবসাইট পরিচালনার জন্য সানি লিওন শুরু করলেন প্রোগ্রামিং শিক্ষা। একই সঙ্গে ভিডিও সম্পাদনা, ফটোগ্রাফি এবং গ্যলারি থাম্ব তৈরি করা বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেন। সানি লিওন একটি বড় গুণ হলো কোন কিছুর শেষ না দেখা অবধি তিনি থামতেন না। এই দৃঢ়চেতা মানসিকতাই তাকে সফল করে তোলে।

সানি লিওন মতে, একটি ব্যবসা ধীরগতিতে শুরু হয়ে লাভের মুখ দেখে। এজন্য ব্যবসায়ীর ধৈর্য দরকার। তিন থেকে চার বছর পর একটি ব্যবসা সফলতার মুখ দেখে বলে তার মন্তব্য। আর এই সময়টুকু হতাশ না হয়ে ধৈর্যের সঙ্গে ব্যবসার গোড়া শক্ত করতে হয়।

ভারতে প্রত্যাবর্তন

ভারতে প্রত্যবর্তন সানি লিওনের জন্য নি:সন্দেহে ঝুঁকিপূ্র্ণ ছিল। ভারতের জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’ থেকে আমন্ত্রণ পাওয়ার পর সানি ভেবেছিলেন এখান থেকে বড় অর্থ পাওয়ার সুযোগ আছে। তবে ভারতীয় জনগনের কাছ থেকে প্রচুর গালাগাল সমৃদ্ধ ই-মেইল এবং ফোনে হুমকি পাওয়ার পর তিনি ভারত প্রত্যাবর্তনের চিন্তা ত্যাগ করেছিলেন। তখন সানির স্বামী ওয়েবার তাকে একটি স্ট্যাটিকটিক্স দেখান।

যেখানে দেখা যায়, ১০ টি দেশের অন্তত ২৫ মিলিয়ন মানুষ এই রিয়েলিটি শো দেখবে। যেটা আমাদের পরিচিতি এবং সাইট ভিউয়ার্স বৃদ্ধির জন্য একটি বিরাট সুযোগ। তারপর দুজনে ভারতে প্রত্যবর্তনের সিদ্ধান্তে একমত হন। প্রচুর প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও সানি এসবকে গায়ে মাখেননি। কারণ তার চিন্তায় ভবিষ্যতের ব্যবসার জন্য মূলধন সংগ্রহ।

‘বিগ বস’ এ অংশ নেওয়ার পর তিনি বুঝতে পারেন এমন একটি বাজার তিনি দখল করতে চলেছেন যেটা বেশীরভাগ মানুষের কাছেই অজানা। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাইট থেকে সানির ওয়েবসাইটে প্রচুর ট্রাফিক আসায় সাইটের বিজ্ঞাপন দেওয়ার প্রয়োজনটাও ফুরিয়ে গিয়েছিল। তার বিরোধী পক্ষ তো আগে থেকেই ছিল। তারপরও যতটা সম্ভব ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়েই তার নতুন জীবন শুরু হয়।

আরো পড়ুন: পর্দার আড়ালে চুমু খান কাজল আগারওয়াল (ভিডিও)

নতুন পরিকল্পনা গ্রহণ

‘বিগ বস’ সমাপ্তির পর সানি বলিউড থেকে অফার পেতে শুরু করেন। তারপর ‘জিসম-২’ মুভিটির মাধ্যমে তার বলিউডে অভিষেক হয়। এরপর অভিনেত্রী সানির উত্থান শুরু হয়। এমনকী বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের মুভি ‘রইস’ এর একটি আইটেম গানেও তার উপস্থিতি দেখা যায়।

যা অনেক বলিউড নায়িকাদের কাছেই স্বপ্নের বিষয়। একের পর এক সিনেমায় অভিনয় করার পর সানি ভাবেন আগামীকাল তার জন্য কি অপেক্ষা করছে। এই আত্মতুষ্টিতে না ভোগাই বলিউডে তাকে একটি অবস্থান তৈরি করে দিয়েছে। তারপর রুপালী পর্দা থেকে শুরু করে টিভি-শো তাকে খুঁজে ফিরে।

সানির ব্যবসায়িক পরিকল্পনার অংশ হিসেবে একটি ‘দি লাস্ট’ নামে পারফিউম ব্রান্ডের যাত্রা শুরু হয়। এটি সম্পূর্ণ তার নিজস্ব কারখানায় নিজস্ব প্রযুক্তিতে উত্পাদিত। এই ব্র্যান্ডিংয়ের সঙ্গে কিম কার্দাশিয়ানের মত মডেলদের যুক্ত করার ফলে ব্যবসা উত্তরোতর বৃদ্ধি পেতে থাকে। এরপর তিনি অলস অর্থ বিনিয়োগের তাগিদে নারীদের জন্য প্রসাধন সামগ্রীর ব্যবসা শুরু করেন। তার লক্ষ্য ছিল তার ব্রান্ড যেন যুগের পর যুগ টিকে থাকে।

আরো পড়ুন: “সরি আমার কিছু করার নেই”

সানি লিওন এখন পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করা বন্ধ করেছেন। মনযোগ দিয়েছেন নিজের ব্যবসার দিকে। অনেক গুণে গুণান্বিত সানি লিওন সম্প্রতি তার আত্মজীবনীর কাজ করছেন। যা ডিজিটাল মাধ্যমে প্রকাশিত হবে। এর পাশাপাশি তিনি শুরু করেছেন অনলাইন গেমিং ব্যবসা। ‘টিন পার্টি অব সানি লিওন’ নামে গেমটি এখন তুমুল জনপ্রিয়।‌ তার ভবিষ্যত পরিকল্পনায় বলিউডে সিনেমা প্রযোজনার বিষয়টিও আছে। এর পেছনে ব্যবসায়িক কারণ ছাড়াও শিল্পেরও কিছু ব্যাপার আছে। নিজের পছন্দকে তিনি রুপালী পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চান। টুইটার তার দেড় মিলিয়নের অধিক ফলোয়ার আছে।

তার মতে, “আমরা প্রতিদিন প্রচুর অলস সময় সোশ্যাল সাইটে কাটাই। এর মধ্যে যদি প্রতিদিন অন্তত ২০ মিনিট সময় ব্যবসা নিয়ে চিন্তা করি তবে স্বাবলম্বী হওয়াটা কোন ব্যপার নয়। কারণ অনলাইন ব্যবসার দ্বার সবার জন্য উন্মুক্ত।”

সতর্ক বিনিয়োগ

বিভিন্ন ব্যবসায় টাকা ছড়িয়ে রাখলেও বিনিয়োগের ব্যপারে সানি খুবই সতর্ক। তার ইনভেস্টমেন্ট পোর্টফোলিওতে মিশ্র পুঁজি, মিউচুয়াল ফান্ড, রিয়েল এস্টেট এবং রিটায়ার্মেন্ট প্ল্যান যুক্ত। তারা এসব অপেক্ষাকৃত নিরাপদ ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আগ্রহী। বেস্কিস ঘটনার পর তাদের বেশ ক্ষতি হয়ে যায়।

এই ক্ষতির ধাক্কা সামলাতে সানি এখন তার ব্যবসায় দ্বিগুণ শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। বিনিয়োগে সতর্কতা অবলম্বনের সবচেয়ে বড় উদাহারণ হলো ভারতীয় শেয়ার বাজার এবং রিয়েল এস্টেট ব্যবসায় তার কোন বিনিয়োগ নেই। কারণ ভারতের প্রেক্ষাপটে এই খাতগুলো লাভজনক হলেও ভীষণ ঝুঁকিপূর্ণ। এমনকী তার বিনিয়োগের তালিকায় গহনাও নেই।

আরো পড়ুন: কাজল আগারওয়ালের সাথে দেখা করতে ৬০ লাখ রুপি!

ড্যানিয়েল : দক্ষ অর্থ পরিচালক

বিয়ের আগে সানি নিজের সমস্ত ব্যবসা এবং অর্থ নিজেই দেখাশোনা করতেন। এমনকী বিয়ের পর স্বামীকে ব্যবসায় যুক্ত করবেন কিনা সেটা নিয়েও বিস্তর ভেবেছেন। তার যখন দুজনে মিলে ব্যবসা শুরু করেন তখন নিজের ব্যবসায়ীক জগতে আরকেজনের প্রবেশটা প্রাথমিক অবস্থায় মানিয়ে নেওয়ার ব্যপার ছিল। কিন্তু স্বামীর ব্যবসায়ীক মানসিকতা তার সমস্ত দু:শ্চিন্তা দূর করে দেয়।

এখন তার কাছে ড্যানিয়েলের ব্যবসায় যুক্ত হওয়াটা বড় একটি সঠিক সিদ্ধান্ত বলে মনে হয়। আর্থিক বিষয় পরিচালনার ক্ষেত্রে ড্যানিয়েল অসাধারণ দক্ষতার পরিচয় দিয়ে আসছেন। এটি সানি লিওনের ব্যবসার গতিকে আরও বাড়িয়ে দেয়। বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে থাকা ব্যবসার আর্থিক পরিচালনার ভার স্বামী ড্যানিয়েলের উপর দিয়ে সানি এখন নিশ্চিন্ত।

অর্থনৈতিক স্বাধীনতা

সানি লিওন সবসময় স্বাধীনচেতা। তার পিতা-মাতাও তাকে স্বাধীন ও স্বনির্ভয় হতে শিখিয়েছেন। সানি জানেন পুরুষতান্ত্রিক সমাজের প্রেক্ষাপটে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা ব্যতীত নারীর মুক্তি নেই। অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য টাকা জমানোর বিষয়ে তার বাবা-মার উপদেশ সানি অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলেন।

খরচ করেন হিসেব করে। বিনিয়োগে তিন সতর্ক। তার মতে, “আমি শতভাগ নিশ্চিত না হয়ে কোথাও বিনিয়োগের ঝুঁকি নেব না। যদি আমার মাথায় একটা ঝুঁকির চিন্তা ঘুরঘুর করতে থাকে তবে আমি কাজে মনযোগ দিতে পারব না। এবং অবশ্যই এটা আমার ব্যবসার জন্য ক্ষতির কারণ হবে। যখন আমি কোন বিনিয়োগের কথা ভাবি তখন আমি বাস্তববাদী হয়ে যাই।”

আরো পড়ুন: চোখ ধাঁধানো বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ২৫টি সেতু !

তাছাড়া এখন সোসাল মিডিয়াতে, আরেক ব্যবস্যা নিয়ে তুমুল আলোচনা হচ্ছে,

অনলাইন গেম, পারফিউম কখনোবা বইয়ের ব্যবসায় নিজেকে চিনিয়েছেন সানি। এবার নামলেন নতুন ব্যবসায়। তার নিজস্ব ব্র্যান্ডের অন্তর্বাস চালু করলেন তিনি। সম্প্রতি, ইন্ডিয়ান লাইসেন্সিং এক্সপো ২০১৯ অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন সানি। সেখানে তার নিজস্ব ব্র্যান্ডের অন্তর্বাস চালু করেছেন।

জীবন গঠনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন অভিনেত্রী ও সাবেক পর্নো তারকা সানি নিওন। বলিউডে স্থান করে নেওয়া তার জন্য সহজ ছিল না। কিন্তু দক্ষতার মাধ্যমে নিজেকে চিনিয়েছেন বলিউডে। তবে সব মহলে উদ্যোক্তা হিসেবে বেশ সুনাম আছে সানির।

সব ক্ষেত্রে তিনি বেশ সাবলীল। তিনি যখন বিজ্ঞাপনে কাজ করেন তখন দেখা যায় শয্যা দৃশ্য থেকে কনডমের বিজ্ঞাপন সবখানেই তার বিচরণ। মূলত কাজকে ভালোবাসেন বলে জানান অভিনেত্রী। সেই কথাই জানলেন ইন্ডিয়ান লাইসেন্সিং এক্সপো ২০১৯ অনুষ্ঠানে।

আরো পড়ুন:

খোলামেলা পোশাক পরা প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হলে সানি বলেন, আমি তারকা। তাই আমার প্রত্যেকটা কাজকর্মের ওপর অন্যদের নজর থাকে। তাই সামান্য উনিশ থেকে বিশ হলে আমাকে ট্রোল হতে হয়। আমি সব সময়ে নিজের পছন্দ মতো খেতে ও পরতে ভালোবাসি। কে কী বলল তাতে তোয়াক্কা করি না।

কেমন পোশাক পাওয়া যাবে তার নতুন এই ব্র্যান্ডের স্টোরে? এ প্রসঙ্গে সানি বলেন,  মূলত অন্তর্বাস ও রুমের ভেতরে পরার মতো পোশাক থাকবে।

সানির নতুন ছবি ‘কোকাকোলা’। চলতি বছর ছবিটি মুক্তি পাবার কথা। এছাড়া অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনায় আসতে ভীষণ আগ্রহী বলে জানান তিনি। গল্প, প্রোডাকশন টিম সবকিছু ঠিকঠাক। সুবিধামতো সময়ে কাজে নামবেন বলে জানান তিনি।

প্রিয় পাঠক, আপনিও সম্ভব ডটকমের অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ ইনবক্স করুন- আমাদের ফেসবুকে SOMVOB.COM  লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।