সানি লিওন এর ইতিহাস: সানি লিয়নের ৪০ অজানা তথ্য! ✔️

367
সানি লিওন

সানি লিয়ন নামটি শুনলে কেউ নাক সিটকান, আবার কেউ আগ্রহ ভরে তাকান। তবে যত তর্ক-বিতর্কই এই তারকাকে নিয়ে হোক না কেন, তিনি কিন্তু তার স্থানটি রূপালি পর্দায় ঠিকই করে নিয়েছেন।

সানি লিওন এর ইতিহাস এখনো পর্যন্ত অনেকের অজানা! পর্ণ জগত থেকে বিগ বস দিয়ে বলিউডে পদার্পণ এই তারকার। আজ সানি লিওন এর ইতিহাস নিয়ে পুর্্গ উল্লেখ করা হয়েছে এবং শেষে সানি লিওন এর কিছু অজানা তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

সব কিছুতেই বিতর্ক জড়িয়ে থাকলেও সানি লিওন আজ জনপ্রিয়। চুটিয়ে করছেন সিনেমা। এবং এখন শরীরের প্রদর্শন বাদ দিয়ে ভালো সিনেমার দিকেও আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।

সেই সানি লিয়ন সম্পর্কে অজানা ২১টি তথ্য রইলো আজকের আয়োজনে। যেমন আপনি কি জানেন, সানি লিওনের আসল নাম কারেনজিৎ কউর ভোহরা?

সানি লিওন

  • ছোটবেলা থেকেই সানি নানা প্রকার খেলাধুলা করতে পছন্দ করতেন। প্রাই সময় রাস্তার ছেলেদের সাথে স্ট্রিট হকি খেলতে দেখা যেত ছোট সানি।
  • ইন্দো-কানাডিয়ান ও আমেরিকান এই সাবেক পর্ন তারকা একাধারে অভিনেত্রী, ব্যবসায়ী এবং মডেল। তিনি বিশ্বাস করেন দর্শকের মধ্যে পুরোপুরি জায়গা করে নিতে তার আরো কিছু সময় লাগবে।

    সানির আসল নাম কারেনজিৎ কউর ভোহরা। পর্দায় তিনি সানি লিওন নাম নিয়ে কাজ করেন।

আরো পড়ুন: শুধু পর্ন তারকা নয় সানি লিওন একজন সফল ব্যবসায়ীও

সানি লিওন এর ইতিহাস

সানি লিওন এর  ব্যক্তিগত জীবনের ইতিহাস

সানি লিওন কেন দেহ ব্যবসা করেন

আমরা সানি লিওন নামটি সোনা মাত্রই আমাদের মধে  নীল জগতের ভাবনা গুলো মাথায় চলে আসে। কিন্তু আমরা কখন কি ভেবে দেখেছি  এই নীল জগতে সে কিভাবে আসল ?

আসুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে সে নিল জগতে আসলো ঃ

এমন একটি জগত নিল জগত যেখানে স্বেচ্ছায় আস্তে চায় না । বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে বহু তরুনি ভাগ্যের দোষে এখানে আসতে বাধ্য হয় । কিন্তু সানি লিওন জন্য  বিষয়টা ছিল একেবারেই ভিন্ন একটি বাপার । সে একদম নিজের ইছায় নিল জগতে এসছেন ।

অধিকাংশ নিল  তারকা বাধ্য হয়েই এখানে পা রাখলেও সানি লিওন আকদম নিজের ইছায় এখানে এসেছেন । কিন্তু এয় নিল তারকা পরবরতিত নিল জগত থাকে বের হয়ে এসে বলিউডে  খুব খাতি অর্জন করেছে ।

আরো পড়ুন: বিস্ময়কর: মৃত প্রিয়জনের সঙ্গে বাস করাই তাদের রীতিনীতি!

বলিউডে সানি লিওন

২০১০ সালে তিনি ১০ জন পর্ণ তারকার মধে একজন হিসাবে নিরবাচিত হন । পরবর্তীতে সময়ে এই পর্ণ তারকা ২০১২ সালে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন ।

প্রথমে ২০১২ সালে  পূজা ভাটের জিসম ২ (২০১২) যৌনাবেদনময়ী থ্রিলার চলচ্চিত্রে কাজ করেন এবং পরবরতিতে এই পর্ণ তারকা কাজ শুরু করেন হিন্দি চলচ্চিত্রে।

সানি লিওনের প্রাথমিক জীবন

লিওন সার্নিয়া, অন্টারিও শহরে একটি  শিখ পাঞ্জাবি বাবা-মার ঘরে জন্ম গ্রহন করেন । তরুণী থাকাকালীন সানি সময়ে  লিওন তিনি খুব খেলাধুলা-প্রেমী ছিলেন এবং ছেলেদের সাথে রাস্তায় হকিও খেলতেন।

১৬ বছর বয়সে সানিলিওন  বিদ্যালয়ের একটি বাস্কেটবল খেলোয়াড়ের সাথে তিনি তার প্রথম  কুমারীত্ব হারান এবং ১৮ বছর বয়সে তাঁর উভকামিতা আবিষ্কৃত হয়।

আরো পড়ুন: এটাই হলো আমার মা-কে দেওয়া সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার!

সানি লিওন এর ব্যক্তিগত জীবনের ইতিহাস

জুন ২০০৬ সালে, লিয়ন একজন আমেরিকান নাগরিক হয়ে ওঠেন। কিন্তু কানাডায় দ্বৈত নাগরিক হিসেবে থাকার পরিকল্পনা করেন। এপ্রিল ১৪, ২০১২ সালে, লিওন দ্য নিউ ইন্ডয়িান এক্সপ্রেস সাক্ষাত্কারে নিজেকে ভারতের অধিবাসী হিসেবে ঘোষণা করেন।

তিনি ব্যাখ্যা করেন যে তিনি ভারতের বৈদেশিক নাগরিক ছিলেন এবং তাঁর বাবা ভারতে বসবাস করতেন, আর তিনি বিদেশী নাগরিকত্ব পাওয়ারও যোগ্য ছিলেন।

কানাডার অন্টারিওতে জন্মগ্রহণকারী সানি লিওন বেপরোয়া পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বড় হয়েছিলেন, কানাডীয় শীতকালীন শীতল এবং তাদের সাথে আসেন তুষার।

স্নোইন এবং বরফ স্কেটিং নির্মাণের মাধ্যমে লিওন পরিবারের বাইরে নিয়মিত কার্যক্রম মার্চ মাসের মাধ্যমে প্রতি মাসে হয়।

আরো পড়ুন: ১০৬টি বিস্ময়কর তথ্য যা আপনাকে অবাক করতে বাধ্য করবেই! 😱

ক্রীড়া জন্য ভালবাসার সঙ্গে, গান এবং নাচ, তরুণ সানি একটি পরিশীলিত অভিনেতা ছিল, মনোযোগ basking তাকে আনা এবং তার উপায় যে প্রশংসিত প্রতিটি শব্দ খাওয়া আপ।

1996 সালে সবকিছু পরিবর্তিত হয়েছে, যখন তার পরিবার আপ ਪੈਕ এবং দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া সরানো।

এটি ছোট কানাডীয় মেয়েটির জন্য একটি কঠিন সমন্বয় ছিল, যার নিষ্ঠুরতা এবং ন্যানভেটে তার নতুন উচ্চ বিদ্যালয় সহপাঠীদের দ্বারা সম্পূর্ণরূপে প্রশংসা পায়নি। উপরন্তু, তার গৃহীত গৃহায়নে তারা সে পুরানো দেশে পছন্দ করে ঋতু পরিবর্তনের অভাব।

সানি অধ্যবসায়ী, যদিও, এবং 1999 সালে স্নাতক পরে, একটি স্থানীয় জুনিয়র কলেজে নাম নথিভুক্ত। একটি বন্ধু তাকে বলেন তাকে মডেলিং চেষ্টা করা উচিত –

একটি তরুণ সৌন্দর্যের জন্য একটি প্রাকৃতিক পছন্দ – তিনি প্রাপ্তবয়স্ক বিনোদন বিশেষ এবং এটি একটি চেষ্টা দিতে নির্দিষ্ট একটি যোগাযোগ পাওয়া যায়।

যদিও প্রাথমিকভাবে তার জামাকাপড় বন্ধ করার এবং ক্যামেরার জন্য তাত্পর্যপূর্ণ উদ্দীপনামূলক সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছিল, কৌতূহলটি তার চেয়ে ভাল ছিল এবং সে সম্পূর্ণ বাহনে ডুবায়েছে, দ্রুততম প্রাপ্তবয়স্ক প্রাপ্তবয়স্ক মডেলগুলির মধ্যে একটি হয়ে উঠছে।

২০০১ সালে সানিকে মার্চ মাসের জন্য প্যান্টহাউজ পিট অফ দ্য মাস নামে অভিহিত করা হয় এবং শীঘ্রই “চেরী”, “হাই সোসাইটি”, “সোয়ানক”, “লেগ ওয়ার্ল্ড”, “হস্টলার” এবং “ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল” “।

তিনি পেন্টহাউসে হাজির ছিলেন: প্যাটারস ইন প্যারেড ইন (2001) হোম ভিডিও, পাশাপাশি জ রুলের “লিভিন ইট আপ” মিউজিক ভিডিও।

আরো পড়ুন: এক প্যাকেট কনডমের দাম ৬৪,০০০ টাকা!

২005 সালে, সানি লিওনে প্রাপ্ত বয়স্ক চলচ্চিত্র শিল্পে প্রবেশ করে তিনি বিশ্বের সবচেয়ে সফল পর্নস্টার হয়ে উঠেন।

প্রাপ্তবয়স্ক চলচ্চিত্রে কাজ করার পাশাপাশি, লিওন তার প্রোডাকশন কোম্পানির সান লাস্ট ছবির 60 টি সিনেমার উৎপাদন ও নির্দেশনা প্রদান করেন।

২০০১ সালে সানি তার বাসভবনে রিয়্যালিটি টিভি শো বিগ বাবুতে উপস্থিত হয়ে ভারতে আসেন, এখানেই তার ভাগ্য পরিবর্তিত হয় এবং ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা মহেশ ভাটকে জিসম ২ কে অভিনয় করেন।

জিশ ২-এর সাফল্যের পর, সানি শিল্পী নিজেকে সিনেমায় অভিনয় করেন না শুধু বলিউডের চলচ্চিত্রে অভিনয় করে, তবে আঞ্চলিক সিনেমাকে গান ও নাচের সংখ্যার বিশেষ উপস্থিতি দিয়ে।

রাগিনী এমএমএস ২ তে তার তৃতীয় বৈশিষ্ট্যটি তার প্রশংসায় এবং বক্স অফিসে সাফল্য অর্জন করেছে।

২01২ সালের হিসাবে তিনি ২0 টির বেশি ভারতীয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এবং 2017 সালে কিছু বড় প্রকল্পে দেখা যাবে, বিশেষ করে রাইস (২017) বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খান অভিনয় করছেন।

বেশিরভাগ সানি (২011) শিরোনাম একটি ডকুমেন্টারীটি টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবে মুক্তি পায় এবং পর্নোতারকা থেকে বলিউডের তারকা থেকে তার উষ্ণতা বৃদ্ধির সূচনা করে।

সানি লিওন এর ব্যক্তিগত জীবনের ইতিহাস ও তথ্য

 সানি লিওন এর  ব্যক্তিগত জীবনের ইতিহাস ও তথ্য

আমার পরিবার আমাকে পছন্দ করে এবং আমি কে আমি সে জন্য আমাকে গ্রহণ করে। কোন পিতা বা মাতা তার সন্তানকে ভালবাসা বন্ধ করতে পারে না। আমি তার চোখে বাবার ছোট মেয়ে।

অবশ্যই, তারা আমাকে [পর্নোগ্রাফিতে] চালিয়ে যেতে চায় না, কিন্তু আমি তাদের পরিকল্পনাগুলি বলছি, আমি যা করছি এবং সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ, আমি তাদের বলি আমি খুশি এবং এটাই তাদের সবচেয়ে বেশি চাওয়া।

কি মেজাজ আমাকে পায় একটি মানুষ কে জানে তিনি কি করছেন। এমন কেউ নেই যে কে জানে কিভাবে আপনার আচরণ করা যায়, আপনাকে স্পর্শ করে এবং আপনাকে ভাল করে তোলে।

আরো পড়ুণ: হাদিস অনুযায়ী সহবাসের নিয়ম; স্বামী স্ত্রীর মিলনের গুরুত্বপুর্ণ হাদিস

হ্যাঁ, আমি চলচ্চিত্রের ভ্রাতৃত্বের বাইরের মানুষের মত অনুভব করি। কিন্তু আমি মনে করি আমার ভক্তরা আমাকে স্বীকার করেছে (নভেম্বর 2015) এখন আমার পুরো ফোকাস বলিউড এবং অন্য কিছুই নয়।

আমি বিশ্বাস করি আমার জীবনকালের সুযোগ দেওয়া হয়েছে এবং আমি এখানে আমার ফোকাস এবং শক্তি রাখার পরিকল্পনা করছি যতক্ষণ না ভক্তরা আমাকে চায় যদি আমার অতীত না হয় তবে আমি হবো না।

আমি এটা লজ্জিত নই কারণ এটি আমাকে এখানে ভারতে নিয়ে এসেছে। যদি আমি কোন বিনোদন অভিজ্ঞতা না নিয়ে নিয়মিত আমাকে এখানে আসেন তবে আমি আজ জনসাধারণের সাথে আজকের মত জনপ্রিয় হব না।

(নভেম্বর 2015) আমি আসলে শব্দ reinvent অপছন্দ আমি কখনোই আমাকে পুনর্বিন্যাস করতে চাই না, আমি কে কে ভালোবাসি।

কিন্তু কি খুব সাংঘাতিকভাবে ঘটতে হয় আমি হত্তয়া এবং মানব, অভিনেত্রী এবং পেশাদারী হিসাবে উত্থান হয় তাই মাস ধরে, হ্যাঁ জিনিস পরিবর্তন হবে কিন্তু এটি পরিকল্পনা করা হয় এমন কিছু নয়। (নভেম্বর 2015)

সানি লিওনের অজানা কিছু তথ্য

সানি লিওনের অজানা কিছু তথ্য

তবে যত তর্ক-বিতর্কই এই তারকাকে নিয়ে হোক না কেন, তিনি কিন্তু তার স্থানটি রূপালি পর্দায় ঠিকই করে নিয়েছেন। পর্ণ জগত থেকে বিগ বস দিয়ে বলিউডে পদার্পণ।

সব কিছুতেই বিতর্ক জড়িয়ে থাকলেও সানি লিওন আজ জনপ্রিয়। চুটিয়ে করছেন সিনেমা। এবং এখন শরীরের প্রদর্শন বাদ দিয়ে ভালো সিনেমার দিকেও আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।

সেই সানি লিয়ন সম্পর্কে অজানা ২১টি তথ্য রইলো আজকের আয়োজনে। যেমন আপনি কি জানেন, সানি লিওনের আসল নাম কারেনজিৎ কউর ভোহরা?

  • (১) ১৯৮১ সালের ১৩ মে সারনিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁরা পিতা মাতার আদি নিবাস পাঞ্জাবে, কিন্তু বসবাস ছিল বিদেশে।
  • (২) ছোটবেলা থেকেই সানি নানা প্রকার খেলাধুলা করতে পছন্দ করতেন। প্রাই সময় রাস্তার ছেলেদের সাথে স্ট্রিট হকি খেলতে দেখা যেত ছোট সানি।

আরো পড়ুণ: স্ত্রী ব্রা খুললেই স্বামী হওয়া যায় না!

  • (৩) ইন্দো-কানাডিয়ান ও আমেরিকান এই সাবেক পর্ন তারকা একাধারে অভিনেত্রী, ব্যবসায়ী এবং মডেল। তিনি বিশ্বাস করেন দর্শকের মধ্যে পুরোপুরি জায়গা করে নিতে তার আরো কিছু সময় লাগবে।

    সানির আসল নাম কারেনজিৎ কউর ভোহরা। পর্দায় তিনি সানি লিওন নাম নিয়ে কাজ করেন।
  • (৪) বলিউডের এই আবেদনময়ী অভিনেত্রীর ছোটবেলা থেকেই পেডিয়াট্রিক নার্স হবার ইচ্ছা ছিল এবং সেই সংকল্পে পড়াশোনাও চালিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু কোন এক অজানা কারণে এই অভিনেত্রী মাত্র ১৯ বছর বয়সে প্রাপ্তবয়স্কদের সিনেমায় নাম লিখান।
  • (৫) এই অভিনেত্রীর কিউই ফলের প্রতি রয়েছে আলাদা রকমের দুর্বলতা। সামনে কিউই ফল থাকবে আর তা সানি খাবেন না এমনটা অসম্ভব। তবে ফলের পাশাপাশি এই তারকার দুর্বলতা রয়েছে ফাস্ট ফুডের প্রতি।
  • (৬) বিগ বস দিয়ে ভারতের মাটিতে রাখেন এই অভিনেত্রী এমন ধারনা করা হলেও বিগ বসে অংশগ্রহন করার পূর্বে বেশ কয়েকবার ভারতে সে ঘুরে যান সানি।
  • (৭) প্রাপ্ত বয়স্কদের সিনেমায় শুধুমাত্র অভিনয়ই করেননি পরিচালনা ছাড়াও প্রযোজনা করেন এই বিতর্কিত তারকা। তিনি ৪১ টি প্রাপ্ত বয়স্কদের সিনেমা পরিচালনা করেন এবং ৪২টিতে তিনি নিজে অভিনয় করেন।

আরো পড়ুণ: কেন মেয়েরা ছেলেদের সাথে প্রতারণা করে! জেনে নিন ১৮টি কারণ

  • (৮) প্লে-বয় এন্টারপ্রাইজের মার্কেটিং বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্টের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল এই বিতর্কিত তারকার।
  • (৯) ‘রাগিনী এমএমএস ২’ ছবিতে তিনি শুটিংয়ের ক্রুদের নিয়ে শুটিংয়ের জায়গা নির্বাচনে চষে বেড়িয়েছেন।
  • (১০) এই তারকা একটি ক্যাথলিক স্কুলে পড়েছেন। মাত্র ১১ বছর বয়সে তার প্রথম চুম্বনের অভিজ্ঞতা হয়।
  • (১১) সম্প্রতি ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সানি জানান তিনি নিজ হাতে তার বান্ধুবীর অনাগত সন্তানের জন্য কম্বল বানিয়েছেন।
  • (১২) পর্ন দুনিয়ার প্রবেশের আগে তিনি জিফি লুব নামের একটি জার্মান বেকারি এবং পরে ট্যাক্স সংক্রান্ত একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন।
  • (১৩) ভূতকে ভয় না করলেও পোকা-মাকড়ে দারুণ ভয় পান এই বিতর্কিত তারকা।
  • (১৪) মজার ব্যাপার হল মহেশ ভাটের ‘জিসম টু’র পূর্বে আরেকটি সিনেমার অফার পেয়েছিলেন এই অভিনেত্রী নাম ছিল ‘কালিয়ুগ’ ছবিতেও তাকে নিতে চেয়েছিলেন পরিচালক মহিত সুরি।

    কিন্তু তার জন্য এক মিলিয়ন ডলার ফি চাওয়ায় পিছু হটেন পরিচালক।
  • (১৫) তিন বছর প্রেম করার পর ড্যানিয়েলকে বিয়ে করেন সানি লিওন।
  • (১৬) বলিউডে আসার আগ দিয়ে ইউএসএ-তে ভারতীয় কমিউনিটি সানির প্রতি ঘৃণা পোষণ করে মেইল পাঠাতো। আবার এখন তারাই সানির বিষয়ে সন্তুষ্ট বলে মেইল করে জানিয়েছেন।

আরো পড়ুন: এইবার ২.৫ কোটি টাকার কনডমের বিজ্ঞাপনে কাজল আগারওয়াল

  • (১৭) সানি লিওনের আঙ্গুরের জুস খুবই প্রিয়।
  • (১৮) পোষা প্রাণীদের মধ্যে কুকুর তার খুবই প্রিয়।
  • (১৯) ২০০৫ সালে সানি সর্বপ্রথম এমটিভি অ্যাওয়ার্ডের মাধ্যমে মেইনস্ট্রিমে আসেন।
  • (২০) তবে সানিকে দেখতে খুব পার্টি প্রিয় মনে হলেও প্রকৃত পক্ষে এই অভিনেত্রী পার্টির প্রতি রয়েছে বিতৃষ্ণা।
  • (২১) পুরুষদের জন্য প্রকাশিত বিখ্যাত ম্যাগাজিন ‘ম্যাক্সিম‘ এর ২০১০ সালের জরিপে পর্ন ইন্ডাস্ট্রির টপ টুয়েলভ এর তালিকায় তার নাম চলে আসে।

প্রিয় পাঠক, আপনিও সম্ভব ডটকমের অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, বিস্ময়কর পৃথিবী, সচেতনমূলক লেখা, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ ইনবক্স করুন- আমাদের ফেসবুকে  SOMVOB.COM লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।