Bijoy Bayanno 2020 Download: বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড

স্বাগতম আপনাকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট সম্ভব ডটকমে।
আমরা এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছি কিভাবে বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড করবেন? bijoy bayanno download করার পর কিভাবে বিজয় বায়ান্ন এক্টিভেশন করবেন। bijoy bayanno activation code সহ দেওয়া আছে স্টেপ বায় স্টেপ।

তার পরবতী কিভাবে আপনি Bijoy bayanno install করবেন? বিজয় বায়ান্ন ইন্সটল করার নিয়ম সহ সম্পুর্ন ডিটেইলসে বর্ণনা করা হয়েছে। এরপর, আপনি কিভাবে বিজয় বায়ান্ন কিবোর্ড ডাউনলোড করবেন এবং বিজয় বায়ান্ন কিবোর্ড লেখার পুর্ণাঙ্গ নিয়ম নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

এসব নিয়ে পুর্নাঙ্গ বর্ণনা ও ছবিসহ আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি বিজয় বায়ান্ন (Bijoy bayanno) নিয়ে আপনার সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

বিজয় বায়ান্ন কি?

(Bijoy Bayanno) বিজয় বায়ান্ন হলো এমন একটি সফটওয়্যার, যার সাহায্যে আপনি খুব সহজে যে কোন ওয়ার্ড, ডকুমেন্টস, ফাইলসহ অন্যান্য কাজে আপনি খুব সহজেই বাংলা লিখা টাইপ করতে পারবেন।

এই সফটওয়্যারটি যেহেতু ইউনিকোড সাপোর্ট করে তাই এটি আপনি ফেজবুক গুগুল সহ অনলাইন সকল স্থানে আপনি বাংলা লেখা টাইপ করতে পারবেন বিজয় বায়ান্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে।

Bijoy bayanno download
Bijoy Bayanno

বাংলা লিখার জন্য আরো সফটওয়্যার থাকলেও বিজয় বায়ান্ন বেস্ট। বিজয় কিবোর্ড যুক্তবর্ণ বিজয় কিবোর্ড হল মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, ম্যাক ওএস এবং লিনাক্স-এ গ্রাফিক্যাল লেআউট পরিবর্তক এবং ইউনিকোড ও এএনএসআই সমর্থিত বাংলা লেখার সফটওয়্যার।

বিজয় এর প্রথম সংস্করণ প্রকাশিত হয় ১৬ ডিসেম্বর ১৯৮৮ সালে যা ইউনিকোড ভিত্তিক অভ্র কী-বোর্ড আসার পূর্বপর্যন্ত বহুল ব্যবহৃত হয়েছে।

ইউনিকোড পরিপূর্ণভাবে প্রচলনের স্বার্থে বিজয় এর দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয় ২০০৯ সালে।

প্রথম সংস্করণের সকল বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে দ্বিতীয় সংস্করণে এমন কিছু নতুন বর্ণ যুক্ত করা হয় যা ইউনিকোড ভিত্তিক বাংলা লেখার জন্য প্রয়োজন হয়।

প্রকৃতপক্ষে বিজয় এর দ্বিতীয় সংস্করণ সম্পূর্ণ প্রয়োগ করা হয়েছে বিজয় এর ইউনিকোড এবং গোল্ড সংস্করণে।

বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড করুণ খুব সহজেই!

Bijoy bayanno
Bijoy bayanno

নোট: যদি ডাউনলোড বা ইনস্টল করতে কোন সমস্যা হয় এখানে ক্লিক করুন

বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড করুন বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড বর্তমান সময়ে ব্যাক্তিগত কাজে বা অফিস আদালতে সব জায়গায় কম বেশিই বিজয় বায়ান্ন সফটওয়্যারটি দরকার।

বিজয় বায়ান্ন সফটওয়্যার ডাউনলোড করা ছাড়াও আরও অন্যান্য বাংলা লেখার সফটওয়্যার রয়েছে, তার মধ্যে বিজয় বায়ান্ন এবং অভ্র এই দুই সফটওয়্যার বেশি ব্যবহার হয়।

তবে অফিশিয়ালি বা সরকারি অফিসগুলোতে বিজয় বায়ান্ন ব্যবহার হয়। তাই আমি ব্যাক্তিগত ভাবে আপনাকে সাজেস্ট করব, আপনি বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড করে এই সফটওয়্যারটি শিখে ফেলুন।

বিজয় বায়ান্নো ২০১২ সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছে। ২০০৯ সালে উইন্ডোজ এক্সপি, ২০১০ সালে উইন্ডোজ এক্সপি-উইন্ডোজ ভিস্তা এবং উইন্ডোজ সেভেন-এর ৩২ বিট অপারেটিং সিস্টেমের জন্য এবং ২০১১ সালে উইন্ডোজের সকল অপারেটিং সিস্টেমের জন্য বিজয় বায়ান্নো প্রকাশ করা হয়েছিলো।

বিজয় বায়ান্নো ২০১২ উইন্ডোজের সকল ধরনের অপারেটিং সিস্টেম সাপোর্ট করছে। বর্তমানে এটি ২০১৯ এ এসে ৩২ বিট ও ৬৪ বিট উভয় সাপোর্ট করে।

বিজয় বায়ান্নোর নতুন সংস্করণের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে যে, এতে বিজয় কীবোর্ড দিয়ে উইন্ডোজ-এর ৩২ এবং ৬৪ বিট উভয় প্রকারের অপারেটিং সিস্টেমে বাংলা লেখা যাবে। একই সাথে এই সংস্করণটি দিয়ে কেবলমাত্র বিজয় কীবোর্ড দিয়ে বিজয় বায়ান্নো ২০১০-এর মতো ইউনিকোড পদ্ধতিও ব্যবহার করা যাবে।

বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড
বিজয় বায়ান্ন

এটি হচ্ছে বাংলাদেশের নতুন কোডিং মান বিডিএস ১৫২০:২০১০ এবং ইউনিকোড ৫.২ কম্পাটিবল একমাত্র সফটওয়্যার। বিজয় একুশে ২০১২ এবং বিজয় একাত্তর নামক আরও দুটি সফটওয়্যার বিজয় বায়ান্নোর মতোই দুই পদ্ধতির ইউনিকোড সাপোর্ট করবে।

অতি প্রয়োজনীয় ফন্টসমূহ ছাড়াও বিজয় ২০০৩ থেকে বিজয় ক্লাসিক এবং বিজয় ক্লাসিক থেকে বিজয় ২০০৩-এর জন্য দুটি ডাটা কনভার্টার এতে রয়েছে।

এই সংস্করণে আড়িয়াল খাঁ, ব্রহ্মপুত্র, বুড়িগঙ্গা সুশ্রী, চন্দ্রাবতী, ঢাকার চিঠি, ধলেশ্বরী, কর্ণফুলি, খোয়াই, তিস্তা, পিনকি, পরশসুশ্রী, রিনকি, রিনকি সুশ্রী, সুমেশ্বরী, সুতন্বী, সুতন্বী সুশ্রী, তন্বী সুশ্রী, তন্বী বাংলা ও উর্মি ফন্ট রয়েছে।

বিজয় বায়ান্নো ২০১২ প্রকাশ উপলক্ষ্যে এর নির্মাতা জনাব মোস্তাফা জব্বার বিশ্বের সকল প্রান্তের বিজয় ব্যবহারকারীদেরকে অভিনন্দন জানিয়ে মন্তব্য করেছেন, “বিজয় বায়ান্নো বাংলা ব্যবহারকারীদের জন্য কম্পিউটারে বাংলা লেখার এক অনন্য সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে।

উইন্ডোজ-এর সকল সংস্করণে কাজ করার ফলে এটি সকলেই ব্যবহার করতে পারবেন এবং এর ফলে আমাদের বাংলা ভাষার ডিজিটাল যাত্রা আরও সুগম হলো। ” সফটওয়্যারটির দাম ১২০ টাকা।

বিজয় বায়ান্ন এক্টিভেশন কোড

কম্পিউটারে বিজয় বায়ান্ন ইনস্টল করতে এক্টিভেশন কোড ছাড়া কিন্তু আপনার সফটওয়্যারটি কম্পিউটারে রান হবে না। তাই আপনাকে অবশ্যই একটিভিশন কোডটি দিয়ে একটিভ করে নিতে হবে।

উইন্ডোজ ১০ এ কিন্তু বিজয় বায়ান্ন ইনষ্টল করতে একটু জামেলা করে। কিন্ত কোন সমস্যা নাই, যদিও কোন সমস্যা করে তার ও সমাধান দেওয়া আছে। বিজয় বায়ান্ন এক্টিভেশন কোডগুলি নিচে দেয়া হল-

Bijoy bayanno activation code 01: RN28-T29S-K1XM-J6XY-LK24

Bijoy bayanno activation code 02: 5356478965411243

বিজয় বায়ান্ন ইন্সটল করার নিয়ম

যারা উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করেন তারা সবাই বিজয় বায়ান্ন ইনস্টল করতে গিয়ে কোন না কোন বাধার সম্মুখীন হয়েছেন। সব থেকে বড় বাধা টি হল .NetFx 3.5 পিসিতে ইনস্টল করা। এ বাধা অতিক্রম করতে দুটি উপায় রয়েছে। প্রথমটি হল নেট থেকে ইনস্টল করা। অন্যটি হল অফলাইনে ইনস্টল করা। আমি এখানে আপনাদের দুটি পদ্ধতিই শেখাবো।পদ্ধতি ১: নেট থেকে ইনস্টল করা।

  • ধাপ ১: প্রথমে  Control panel যান।
  • ধাপ ২: Programs থেকে Uninstall a Program এ যান।
  • ধাপ ৩: বাম পাশ থেকে Turn Windows Features on or off এ ক্লিক করেন।
  • ধাপ ৪: .Net Framework 3.5 এ টিক দিয়ে  ok করুন।
  • ধাপ ৫: এবার নতুন একটি ডায়লগ বক্স আসবে। সেখানে Install this Feature  এ ক্লিক করুন।
  • তাহলে ফাইলটি ডাউনলোড হওয়া শুরু হবে। ২৫০ মেগাবাইটের মত লাগে। একা একাই ইন্সটল নেবে। ব্যস কাজ শেষ। এরপর বিজয় ইন্সটল করে নিন।
bijoy bayanno 2020 download

পদ্ধতি ২: অফলাইনে (Bijoy Banyanno) ইন্সটল করার নিয়ম

এটা  করতে একটি উইন্ডোজ ১০ এর ডিস্ক লাগবে।

  • ধাপ ১: প্রথমে Command promt এ Right click করে Run as adminstator ওপেন করুন।
  • ধাপ ২: এবার  Command দিন  DISM.exe /Online /Cleanup-Image /RestoreHealth দিয়ে enter চাপুন। এটা ১০০% হতে কিছু সময় লাগবে। যেখানে যেখানে স্পেস আছে খেয়াল করে দেবেন।
  • ধাপ ৩: এবার উইন্ডোজ ১০ এর ডিস্কটি পিসিতে ঢোকান। তারপর ১ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • ধাপ ৪: এবার  Command দিন Dism.exe /Online /enable-feature /Featurename:NetFX3 /All /Source:G:\sources\sxs /LimitAccess দিয়ে enter চাপুন। যেখানে যেখানে স্পেস আছে খেয়াল করে দেবেন।
  • ব্যস কাজ শেষ। .Net Framework 3.5 ইনস্টল হয়ে গেল। এরপর বিজয় ইন্সটল করে নিন।
  • শুভেচ্ছা সবাইকে। ভাল থাকবেন।

বিজয় বায়ান্ন সেটাপ বা ইনস্টল করতে পারছি না সমাধান কি?

উইন্ডোজ ৮ বা ৮.১ ব্যবহার করেন তাদের কম্পিউটারে বিজয় বায়ান্ন ইনস্টলের সময় ডট নেট ফ্রেমওয়ার্ক ৩.৫ রিকোয়ার করবে। ডট নেট ফ্রেমওয়ার্ক ৩.৫ ফাইলটি অনেক বড় এবং ইনস্টল হতে অনেক সময় লাগে। যাদের ইন্টারনেট কানেকশন স্লো তাদের সারা জীবন লেগে যাবে। তাছাড়া আপনি WinRAR সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে ইনষ্টল করে তার পর বিজয় ৫২ বায়ান্ন ইনষ্টল দিতে হবে।

Bijoy Bayanno
বিজয় বায়ান্ন

বিজয় কিবোর্ড ডাউনলোড

বিজয় কিবোর্ড ডাউনলোড
বিজয় কিবোর্ড ডাউনলোড করুন
bijoy bayanno 2020 download

বিজয় কিবোর্ড বাংলা লেখার নিয়ম pdf

উপরে আমরা বিজয় বায়ান্ন ডাউনলোড এবং ইনস্টল সম্পকের্ জানার চেস্টা করছি। এই স্টেপে আমরা জানব বিজয় কিবোর্ড বাংলা লেখার নিয়ম pdf সহ Download করার ঝামেলা ছাড়াই সহজেই জানতে পারবেন। নিচের স্টেপস গুলো ফলো করলে আশা করি আপনার এক্সট্রা কোন গাইড লাগবে না।

ডেস্কটপ / ল্যাপটপে বিজয় বায়ান্নো ২০১২ সফটওয়্যারটি সঠিক ভাবে ইন্সটল করার পর বাংলা লেখার সময় কিবোর্ড টি পরিবর্তন করে বিজয় এ রুপান্তর করে নিতে হবে। তবে তার আগে যেকোন একটি বাংলা ফন্ট যেমন SutonnyMJ ফন্টটি সেট করে নিতে হবে। এরপর কিবোর্ড থেকে Ctrl+Alt+B প্রেস করে কিবোর্ড পরিবর্তন করতে হবে।

ফন্ট সেটআপটি বাংলায় কনভার্ট হয়েছে কিনা সেটি পর্যবেক্ষণ করতে Shift+F প্রেস করার পর যদি ফন্ট সেটআপটি ঠিক থাকে তাহলে বাংলা বর্ণমালার প্রথম বর্ণ ‘‘ আসবে। যদি বাংলা থেকে পুনরায় ইংলিশ ফন্টে আসতে হয়, তাহলে আবার Ctrl+Alt+B প্রেস করার পর ফন্টকেও পরিবর্তন করে যেকোন একটি ইংরেজি ফন্ট যেমন Calibri (Body) সেট করে নিতে হবে। তাহলে পুনরায় ইংরেজি টাইপ করা যাবে।

► বিজয় কিবোর্ড দিয়ে শুদ্ধভাবে সহজে বাংলা লিখতে হলে জানতে হবে কোন বর্ণের জন্য কোন ইংরেজি লেটার ব্যবহার করতে হবে।

এখন জেনে নিই বিজয় কিবোর্ড দিয়ে বাংলা লিখতে কোন বর্ণের জন্য ইংরেজি কোন লেটার ব্যবহার করা হয়।

  • ► স্বরবর্ণ:
  • → অ = Shift+F
  • → আ = G+F
  • → ই = G+D
  • → ঈ = G+(Shift+D)
  • → উ = G+S
  • → ঊ = G+(Shift+S)
  • → ঋ = G+A
  • → এ = G+C
  • → ঐ = G+(Shift+C)
  • → ও = X
  • → ঔ = G+(Shift+X)

বিজয় কীবোর্ড দিয়ে বাংলা স্বরবর্ণ টাইপ করার নিয়ম

অ = Shift+Fআ = G+Fই = G+Dঈ = G+(Shift+D)
উ = G+Sঊ = G+(Shift+S)ঋ = G+Aএ = G+C
ঐ = G+(Shift+C)ও = Xঔ = G+(Shift+X)
  • ► ব্যঞ্জনবর্ণ:
  • → ক = J
  • → খ = Shift+J
  • → গ = O
  • → ঘ = Shift+O
  • → ঙ = Q
  • → চ = Y
  • → ছ = Shift+Y
  • → জ = U
  • → ঝ = Shift+U
  • → ঞ = Shift+I
  • → ট = T
  • → ঠ = Shift+T
  • → ড = E
  • → ঢ = Shift+E
  • → ণ = Shift+B
  • → ত = K
  • → থ = Shift+K
  • → দ = L
  • → ধ = Shift+L
  • → ন = B
  • → প = R
  • → ফ = Shift+R
  • → ব = H
  • → ভ = Shift+H
  • → ম = M
  • → য = W
  • → র = V
  • → ল = Shift+V
  • → শ = Shift+M
  • → ষ = Shift+N
  • → স = N
  • → হ = I
  • → ঢ় = P
  • → য় = Shift+W
  • → ৎ = Shift+/
  • → ং = Shift+Q
  • → ঃ = /
  • → ঁ = Shift+7
  • ► অন্যান্য:
  • → া = F
  • → ি = D
  • → ী = Shift+D
  • → ু = S
  • → ূ = Shift+S
  • → ৃ = A
  • → ে = C
  • → ৈ = Shift+C
  • → ৌ = Shift+X
  • → রেফ = Shift+A
  • → হসন্ত = G
  • → দাড়ি = Shift+G
  • → র-ফলা = Z
  • → য-ফলা = Shift+Z

বিজয় বায়ান্ন যুক্তবর্ণ: যুক্তাক্ষর জেনে নির্ভুল বাংলা লিখি!

► স্বরবর্ণ ও ব্যঞ্জনবর্ণ ছাড়াও অন্যান্য চিহ্ন সম্পর্কে জানার পর যেটি জানা অত্যাবশ্যক তা হল যুক্তাক্ষর। তাই শুদ্ধভাবে বাংলা বানান লেখার জন্য ও জানার জন্য বিজয় বায়ান্ন যুক্তবর্ণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যুক্তাক্ষর সম্পর্কে ভালো ভাবে জানলে ভুল বানান লেখা অনেকাংশে কমে যায়।

  • ► যুক্তাক্ষর:
  • → ক্ত (ক+ত) = J+G+k ; যেমনঃ তক্তা
  • → ক্ষ (ক+ষ) = J+G+(Shift+N) ; যেমনঃ ক্ষমা
  • → হ্ম (হ+ম) = I+G+M ; যেমনঃ ব্রহ্মা
  • → ক্ষ্ম (ক+ষ+ম) = J+G+(Shift+N)+G+M ; যেমনঃ লক্ষ্মী
  • → জ্ঞ (জ+ঞ) = U+G+(Shift+I) ; যেমনঃ অজ্ঞ
  • → ঞ্জ (ঞ + জ) = (Shift+I)+G+U ; যেমনঃ গুঞ্জন
  • → ঞ্চ (ঞ + চ) = (Shift+I)+G+Y ; যেমনঃ চঞ্চল
  • → ব্ব (ব+ব) = H+G+H ; যেমনঃ আব্বা
  • → ত্ত (ত+ত) = K+G+K ; যেমনঃ মত্ত
  • → ত্র (ত+র) = k+Z ; যেমনঃ ত্রাণ
  • → হৃ (হ+ ঋ) = I+ ; যেমনঃ হৃদয়
  • → ঘু (ঘ+ু) = (Shift+O)+S ; যেমনঃ ঘুঘু
  • → হু (হ+ু) = I+S ; যেমনঃ হুংকার
  • → শু (শ+ু) = (Shift+M)+S ; যেমনঃ শুটকি
  • → ক্র (ক+র) = J+Z ; যেমনঃ ক্রন্দন
  • → ন্ত্র (ন+ত+র) = B+G+K+Z ; যেমনঃ মন্ত্র
  • → দ্ধ (দ+ধ) = L+G+(Shift+L) ; যেমনঃ উদ্ধার
  • → দ্ভ (দ+ভ) = L+G+(Shift+H) ; যেমনঃ উদ্ভাবক
  • → ক্স (ক+স) = J+G+N ; যেমনঃ কক্সবাজার
  • → ক্ম (ক+ম) = J+G+M ; যেমনঃ রুক্মিণী
  • → ক্ল (ক+ল) = J+G+(Shift+V) ; যেমনঃ ক্লাস
  • → ঙ্গ (ঙ+গ) = Q+G+O ; যেমনঃ অঙ্গন
  • → চ্ছ (চ+ছ) = Y+G+(Shift+Y) ; যেমনঃ যথেচ্ছা
  • → ক্ক (ক+ক) = J+G+J ; যেমনঃ চক্কর
  • → গ্ধ (গ+ধ) = O+G+(Shift+L) ; যেমনঃ মুগ্ধ
  • → গ্ম (গ+ম) = O+G+M ; যেমনঃ বাগ্মী
  • → গ্র (গ+ র-ফলা) = O+Z ; যেমনঃ গ্রাস
  • → গ্ল (গ+ল) = O+G+(Shift+V) ; যেমনঃ গ্লাস
  • → গ্রু (গ+র+ু) = O+Z+S ; যেমনঃ গ্রুপ
  • → ঙ্ক (ঙ+ক) = Q+G+J ; যেমনঃ অঙ্কন
  • → ঙ্খ (ঙ+খ) = Q+G+(Shift+J) ; যেমনঃ শঙ্খ
  • → জ্জ (জ+জ) = U+G+U ; যেমনঃ লজ্জা
  • → দ্ম (দ+ম) = L+G+M ; যেমনঃ পদ্মা
  • → জ্জ্ব (জ+জ+ব) = U+G+(Shift+I) ; যেমনঃ উজ্জ্বল
  • → ট্ট (ট+ট) = T+T ; যেমনঃ চট্টগ্রাম
  • → ন্ঠ (ন+ঠ) = (Shift+B)+G+(Shift+T) ; যেমনঃ লণ্ঠন
  • → ত্থ (ত+থ) = K+G+(Shift+K) ; যেমনঃ অশ্বত্থ
  • → ত্ম (ত+ম) = K+G+M ; যেমনঃ আত্ম
  • → ত্ত্ব (ত+ত+ব) = K+G+K+G+H ; যেমনঃ তত্ত্বাবধায়ক
  • → ত্রু (ত+র-ফলা+ু) = K+Z+S ; যেমনঃ ত্রুটি
  • → দ্রু (দ+র+ু) = L+Z+S ; যেমনঃ দ্রুত
  • → ধ্রু (ধ+র-ফলা+ু) = (Shift+L)+Z+S
  • → ন্থ (ন+হ) = B+G+(Shift+K) ; যেমনঃ গ্রন্থ
  • → ন্ব (ন+ব) = B+G+H ; যেমনঃ অন্বেষণ
  • → ন্ম (ন+ম) = B+G+M ; যেমনঃ জন্ম
  • → ন্ট্রা (ন+ট+র+া) = B+G+T+Z+F ; যেমনঃ কন্ট্রাক্টর
  • → ন্ড্রু (ন+ড+র+ু) = B+G+K+Z ; যেমনঃ এন্ড্রু
  • → ন্দ্র (ন+দ+র-ফলা) = B+G+L+Z ; যেমনঃ চন্দ্রিমা
  • → ন্ধ (ন+ধ) = B+(Shift+L) ; যেমনঃ অন্ধ
  • → ব্ধ (ব+ধ) = H+G+(Shift+L) ; যেমনঃ উপলব্ধি
  • → ভ্র (ভ+র) = (Shift+H)+Z ; যেমনঃ ভ্রমণ
  • → ভ্রু (ভ+র+ু) = (Shift+H)+Z+(Shift+S) ; যেমনঃ ভ্রুকটি
  • → ম্ন (ম+ন) = M+G+B ; যেমনঃ নিম্ন
  • → ল্কা (ল+ক+া) = V+G+J+F ; যেমনঃ হাল্কা
  • → শ্ম (শ+ম) = (Shift+M)+G+M ; যেমনঃ শ্মশান
  • → ষ্ক (ষ+ক) = (Shift+N)+G+J ; যেমনঃ পরিষ্কার
  • → ষ্ঠ (ষ+ঠ) = (Shift+N)+G+(Shift+T) ; যেমনঃ সুষ্ঠু
  • → ষ্প (ষ+প) = (Shift+N)+G+R ; যেমনঃ নিষ্পাপ
  • → ষ্ফ (ষ+ফ) = (Shift+N)+G+(Shift+R) ; যেমনঃ নিষ্ফল
  • → ষ্ট্র (ষ+ট+র-ফলা) = (Shift+N)+G+T+Z ; যেমনঃ রাষ্ট্র
  • → ষ্ণ (ষ+ণ) = (Shift+N)+G+(Shift+B) ; যেমনঃ উষ্ণ
  • → ষ্ম (ষ+ম) = (Shift+N)+G+M ; যেমনঃ গ্রীষ্ম
  • → স্থ (স+হ) = N+G+(Shift+K) ; যেমনঃ অবস্থান
  • → স্ত্র (স+ত+র) = N+G+K+Z ; যেমনঃ অস্ত্র
  • → স্ক্রু (স+ক+র+ু) = N+G+J+Z+S ; যেমনঃ স্ক্রু
  • → স্ক্র (স+ক+র) = N+G+J+Z ; যেমনঃ স্ক্রিন
  • → স্প্ল (স+প+ল) = N+G+R+G+(Shift+V) ; যেমনঃ স্প্লিন্টার
  • → হ্ন (হ+ন) = I+G+B ; যেমনঃ বহ্নি
  • → স্ফ (স+ফ) = N+G+(Shift+R) ; যেমনঃ স্ফীত
  • → চ্ছ্ব (চ+ছ+ব) = Y+G+(Shift+Y)+G+H ; যেমনঃ উচ্ছ্বাস
  • → হ্ব (হ+ব) = I+G+H ; যেমনঃ বিহ্বল

source: http://bdictclub.net

উপরের প্রতিবেদনটি কেমন হইছে তা আমাদের ফেসবুক পেজে জানান। যদি আপনার ওয়েবসাইট নিয়ে বা প্রতিবেদন নিয়ে কোন প্রশ্ন থাকে বা কোন সাজেশন থাকে মন খুলে ফেসবুকে আমাদের জানান।

আর আপনি যদি এই ওয়েবসাইটে আপনার নিজের যে কোন ক্যাটাগরির লিখা লিখতে চান তাহলে আপনাকে অভিনন্দন! লিখা আপনার নামে ব্যাক্ললিংক সহ পাব্লিষ্ট হবে।

এবং আমরা আপনার মতামত ১০০% আন্তরিক ও গুরুত্বভাবে নিই এবং আপনাদের মতামত অনুযায়ী আমরা কাজ করে থাকি।

আশাকরি আপনিও বিনা দ্বিধায় জানাবেন। নিচে ফেজবুক পেজে লাইক দিয়ে সম্ভব ডটকমকের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ

Leave A Reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

Romantic SMS | ৮০০০+ বাংলা (রোমান্টিক ❤ ভালোবাসার) এসএমএম

Nilima Sikdar (Nuha) » আমি চাঁদ চাইনা, সে উঠবে রাতে। আমি রাত চাইনা, সে হারাবে প্রভাতে। আমি ফুল চাইনা, সে ঝরবে...

সব সময় হাসি খুশি ও মন ভালো রাখার বৈজ্ঞানিক ২০টি মূলমন্ত্র!

নিজ নিজ জীবনে সবাই সুখে থাকতে চায়। কেউ পারে আবার জীবনের বিভিন্ন ধরণের জটিলতার জন্য কেউ পারেনা। কিন্তু জীবনে যতোই জটিলতা...

অন্যমনস্ক? মনোযোগ বৃদ্ধির দোয়া ও বিশেষ কৌশল

সব কিছু মনে রাখা কারও পক্ষেই সম্ভব নয়, তবে যদি খুব বেশি ভুল হতে থাকে তা হয়ত খারাপ প্রভাব ফেলবে...

উচ্চ রক্তচাপের বা হাই প্রেসারের ৪০টি কারণ জেনে নিন!

উচ্চ রক্তচাপের বা হাই প্রেসারের কারণে মানুষের অনেক মারাত্মক রোগের আকার ধারণ করতে পারে। তাই উচ্চ রক্তচাপের বা হাই...

শিশু না খাওয়ার ১০টি কারণ ও ২০টি সমাধান 👌

শিশু খেতে চায় না কেন? শিশু না খাওয়ার কারণ কি? শিশুর কি ক্ষুধা পায় না! নিশ্চয়ই পায়, বড়দের চেয়ে তাদের ...

Related Stories