কনডম ক্রয়ের আগে যে জিনিসগুলো জানা খুবই জরুরী!

456
কনডম ক্রয়ের আগে যে জিনিসগুলো জানা খুবই জরুরী!

যৌনরোগের সংক্রমণ ঠেকাতে কন্ডোম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু জানেন কি জামা-কাপড়ের মতো কন্ডোমও বিভিন্ন মাপের আর বিভিন্ন ধরনের হয়? না, শুধু কন্ডোমের স্বাদের বিভিন্নতার কথা বলছি না।

যে কন্ডোমটি কেনা হচ্ছে, সেটি যৌনাঙ্গের মাপ অনুযায়ী কেনা হচ্ছে তো? কন্ডোম তৈরির ক্ষেত্রে ব্যবহৃত উপাদানগুলি আপনার ত্বকের জন্য সুরক্ষিত তো? কন্ডোম কেনার আগে এমনই কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেখে নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। আসুন সেগুলি সম্পর্কে সবিস্তারে জেনে নেওয়া যাক…

১) বাজারে তিনটি মাপের কন্ডোম পাওয়া যায়, স্মল ফিট, রেগুলার ফিট, লার্জ ফিট। কোন মাপের কন্ডোমে আপনি সবচেয়ে বেশি সচ্ছ্বন্দ বোধ করেন, প্রথমেই বুঝে নেওয়া প্রয়োজন। কন্ডোম প্রয়োজনের তুলনায় ছোট হলে, তা সঙ্গমের সময় ফেটে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। প্রয়োজনের তুলনায় বড় কন্ডোমেও সঙ্গমের সময় অস্বস্তি হতে পারে। তাই সঠিক মাপের কন্ডোম কেনা অত্যন্ত জরুরি।

আরও পড়ুন: হস্তমৈথুন বাদ দিলে ঘন ঘন স্বপ্নদোষ হয়?

২) কন্ডোম কেনার সময় সেটি কোন উপাদানে তৈরি, তা খেয়াল রাখতে হবে। ল্যাটেক্স, সিলিকন, পলিউথারিননাগেটস— এমন নানা উপাদান দিয়েই কন্ডোম তৈরি হয়। কিন্তু কন্ডোম তৈরির ক্ষেত্রে ব্যবহৃত এই উপাদানগুলি আপনার ত্বকের জন্য সুরক্ষিত তো? এর কোনওটির জন্য আপনার শরীরে কোনও রকম সমস্যা তৈরি করে না তো? কোনও অস্বস্তি বা অ্যালার্জি হয় না তো? ভাল করে খেয়াল করুন।

৩) কন্ডোম তৈরির সময় তার লুবরিকেশনের ওপর জোর দেওয়া হয়। কারণ, এর উপরেও সঙ্গম-সুখের মাত্রা অনেকটাই নির্ভর করে। তেলতেলে বা জেল-এর মতো লুবরিকেন্ট ঘর্ষণে ছিড়ে যেতে পারে। তাই সিলিকন ভিত্তিক লুবরিকেন্ট বা ‘ওয়াটার বেসড’ লুবরিকেন্ট ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা।

৪) ওষুধ কেনার মতো কন্ডোম কেনার আগেও তার ‘এক্সপায়ারি ডেট’ দেখে নিন। পুরনো কন্ডোম ব্যবহারের ক্ষেত্রে এক্সপায়ার করা লুবরিকেন্ট ত্বকের ক্ষতি করতে পারে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও সম্ভব ডটকমের অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ ইনবক্স করুন- আমাদের ফেসবুকে প্রতিদিনের স্বাস্থ্য টিপস লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।