ডিমের খোসার উপকারিতা জানলে আপনি অবাক হবেন!

বর্তমানে কোন কিছুই অবহেলা করার মত না। প্রত্যেক প্রাকৃতিক উপাদানের কিছু গুণ আছে,যা অনেক উপকারী। প্রোটিনের প্রধান উৎস হিসেবে প্রথম সে খাবারটির নাম আসে তা হল ‘ডিম’। বিশেষজ্ঞরা প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

সাধারণত ডিম খেয়ে খোসা আমরা ফেলে দেই। তবে আপনি জানেন কী ডিমের খোসাও কাজে লাগে। ডিমের খোসার রয়েছে নানা উপকারিতা।

ডিমের খোসায় রয়েছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড ও কোলাজেন। এই সব যৌগ শরীরের নানা ব্যাধি, মূলত, ব্যথা-বেদনা সরাতে কাজে আসে।

তারুণ্য ধরে রাখে

এক টেবিল চামচ ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে এক চা চামচ গুড় ও একটি ডিমের খোসা গুঁড়া করে একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের বয়সের ছাপ কমিয়ে তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

কালচে ভাব দূর করে

একটি ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে এক টেবিল চামচ ডিমের খোসার গুঁড়া মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এই প্যাক মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের কালচে দাগ সহজেই দূর করবে।

পোকার আক্রমণ

ডিমের খোসায় রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম কার্বনেট, ম্যাগনেশিয়াম ও ক্যালসিয়াম। বা়ড়ির বাগানে বা কোনও গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচবে গাছ।

ত্বকের সংক্রমণ দূর করে

ডিমের খোসা ভালো করে গুঁড়া করে নিন। এবার এক কাপ আপেল সিডার ভিনেগারের মধ্যে এই গুঁড়া কয়েক ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর এই প্যাক পুরো মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন। এতে আপনার ত্বকের সংক্রমণ জাতীয় সমস্যার দ্রুত সমাধান হবে।

দ্জয়েন্টের ব্যথা উপশম

একটি পাত্রে অ্যাপল সাইডার ভিনেগার এবং একটি ডিমের খোসা ভেঙ্গে গুঁড়ো করে নিন। এবার এটি রেখে দিন যতদিন পর্যন্ত না ডিমের খোসাগুলো ভিনেগারের সাথে মিশে না যায়। মোটামুটি ২ দিন রেখে দিলে ডিমের খোসাগুলো ভিনেগারের সাথে মিশে যাবে। ডিমের খোসায় কোলাজেন, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড থাকে যা ভিনেগারের সাথে মিশে ব্যথা উপশম করে দেয়। ব্যথার স্থানে এই মিশ্রণটি ম্যাসাজ করে লাগান।

আরো পড়ুন: স্ত্রী ব্রা খুললেই স্বামী হওয়া যায় না!

মাটির উর্বরতা

ডিমের খোসায় প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং মিনারেল রয়েছে যা আপনার বাগানের উর্বরতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে। ডিমের খোসা গুঁড়ো করে নিন এবার এটি মাটিতে ব্যবহার করুন।

বাসন-পত্র পরিষ্কার করে

অনেকসময় খাবার রান্না করতে গিয়ে হাঁড়ি পাতিলের নিচে লেগে যায়। এই পোড়া দাগ দূর করতে ডিমের খোসা সাহায্য করবে। ডিশ ওয়াশারের সাথে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এবার এটি হাঁড়ি পাতিল পরিষ্কার করার কাজে ব্যবহার করুন, দেখবেন পোড়া দাগ খুব সহজে দূর হয়ে গেছে।

কফি মিষ্টি করতে

কফির তেতো স্বাদের কারণে অনেকেই এটি খেতে চান না। এই তেতো স্বাদ দূর করার জন্য কিছু পরিমাণে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে কফির সাথে মিশিয়ে দিন। ডিমের খোসা কফির নিচে পড়ে থাকবে আর কফির তেতো স্বাদ দূর করে দিবে।

পোকামাকড় এবং বালাই দূরে রাখতে

আপনার প্রিয় বাগানকে পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে ডিমের খোসা! বাগানে চারপাশে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। এমনকি গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে দিয়ে রাখতে পারেন। এতে আপনার গাছ পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা পাবে।

ময়লা জমে যাওয়া ড্রেন পরিস্কার করতে

অনেকসময় রান্নাঘরের সিঙ্ক এ ময়লা জমে বন্ধ হয়ে যায়। এই সমস্যা করে সমাধান করে দিবে ডিমের খোসা। ডিমের খোসা মিহি গুঁড়ো করে জমা ড্রেনের মধ্যে দিয়ে দিন। তারপর বেশি করে জল ঢেলে দিন। দেখবেন ড্রেন পরিষ্কার হয়ে গেছে।

আরো পড়ুন: এমন ২০টি খাবার, যা আপনার যৌনশক্তিকে দ্বিগুণ করবে!

চা বা কফি

ডিম ভেঙে তার খোসা ধুয়ে বড় বড় টুকরো করে তা ছড়িয়ে দিন চা বা কফিতে। তারপর আরও একবার ছেঁকে নিন চা। ডিমের খোসার হায়ালুরোনিক অ্যাসিড টেনে নেবে তেতো ভাব।

পোড়া দাগ

বাসনের পোড়া দাগ দূর করতেও ডিমকে কাজে লাগান। বাসন ধোয়া সাবানের সঙ্গে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। পোড়া দাগ গায়েব হবে সহজে।

বাত বা গাঁটের ব্যথা

বাত বা গাঁটের ব্যথা কমিয়ে আরাম দেয় ডিমের খোসা। আপেল সাইডার ভিনেগারের সঙ্গে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে দুই দিন রেখে দিন। গলে মিশে যাবে খোসা। এই মিশ্রণ লাগান ব্যথার জায়গায়। ব্যথা কমে যাবে এবং আরাম পাবেন।

ত্বক পরিষ্কার করতে

১টি ডিমের সাদা অংশ, এবং এক বা দুটি ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন বা তিন টেবিল চামচ ডিমের খোসার গুঁড়ার সঙ্গে এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে মুখে লাগান। এটি ত্বকে ব্যবহার করুন। তারপর কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বক পরিষ্কার ও দাগহীন হবে। আর দেখুন ত্বক কেমন নরম কোমল হয়ে গেছে।

বলিরেখা দূর করে

এক টেবিল চামচ চিনির সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ ও ডিমের খোসার গুঁড়া মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এবার এই প্যাক মুখে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এতে সহজেই ত্বকের বলিরেখা দূর হবে।


[ প্রিয় পাঠক, আপনিও সম্ভব ডটকমের অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ ইনবক্স করুন- আমাদের ফেসবুকে প্রতিদিনের স্বাস্থ্য টিপস। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। ]


Leave A Reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

গোসলের আগে ত্বকের যত্ন: আপনিও গোসলের সময় এই ভুলগুলো করেন?

গোসল আমাদের প্রতিদিনের কাজের অংশ। একদিন গোসল না করে থাকলেই অস্বস্তি শুরু হয়ে যায়। নিজেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে গোসলের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি।গোসলের আগে...

বেগুনের এমন ৪০টি উপকারিতা, আপনি শুনলে অবাক হবেন!😱

সম্ভব ডটকম: বেগুনের কোনও গুণ নেই, এ কথা যারা বলেন তারা এই সবজিটির অনেক গুণের সম্পর্কেই হয়তো জানেন না। ডায়াবেটিস,...

শিশু না খাওয়ার ১০টি কারণ ও ২০টি সমাধান 👌

শিশু খেতে চায় না কেন? শিশু না খাওয়ার কারণ কি? শিশুর কি ক্ষুধা পায় না! নিশ্চয়ই পায়, বড়দের চেয়ে তাদের ...

গল্পঃ অন্তহীন ভালোবাসা

লেখকঃ সালমান হোসেন প্রায় ৭০ বছর বয়সী একজন বৃদ্ধের বিয়ে বাড়ির খাওয়ার টেবিলে হঠাৎ কেঁদে উঠা..টেবিলে. বশে থাকা.. আর সবাই বলছেন.. মিয়া ভাই....

পার্ল ফেসিয়াল এর উপকারিতা; ২০টি ফেসিয়াল ট্রিটমেন্ট

ফেসিয়াল ট্রিটমেন্ট কোন সময় কোন ফেসিয়াল করবেন এটা নিয়ে সকলেই চিন্তিত! তাই আজ আমরা এমন ২০টি ফেসিয়াল ট্রিটমেন্ট নিয়ে আলোচনা করেছি...

Related Stories