দুই হাতের উপর দাঁড়িয়ে আছে ভিয়েতনামের এই গোল্ডেন ব্রিজ

434

বিশ্বে অনেক বিষ্ময়কর কিছু দেখা যায়। অনেক অনেক অদ্ভুত জিনিসও দেখা যায়। কিন্তু কোন সেতুটি অদ্ভুত এমন প্রশ্ন করা হলে অনেক উত্তর জানা যাবে। আবার হয়তো অনেকেই কোনো উত্তর দিতে পারবে না। তবে, অনেকেই দাবি করেছেন বিশ্বের অদ্ভুত সেতু হলো ভিয়েতনামের ‘গোল্ডেন ব্রিজ’। 

ভিয়েতনামের এ সেতুকে অভিনব সেতু বলছেন অনেকেই। সম্প্রতি সংস্কার করে নতুন রূপ দেওয়া হয়েছে সোনালি রঙের সেতুটিকে। আর এতেই সামাজিক মাধ্যমে বিশ্বের সবচেয়ে অদ্ভুত সেতু হিসেবে এটি প্রচার পেয়েছে। কোনো গাড়ি চলাচল করে না সেতুটিতে। কেবল কার স্টেশনে ওঠার জন্য পথচারীরা দারুণ সুন্দর সেতুটি ব্যবহার করেন।

সম্প্রতি সংস্কার করে নতুন রূপ দেওয়া হয়েছে সোনালি রঙের সেতুটিকে। আর এতেই সামাজিক মাধ্যমে বিশ্বের সবচেয়ে অদ্ভুত সেতু হিসেবে এটি প্রচার পেয়েছে। কোনো গাড়ি চলাচল করে না সেতুটিতে। কেবল কার স্টেশনে ওঠার জন্য পথচারীরা দারুণ সুন্দর সেতুটি ব্যবহার করেন।

আরো পড়ুন: চোখ ধাঁধানো বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ২৫টি সেতু !

এ পর্যটন এলাকাটি মোটেই নতুন নয়, ১৯১৯ সালে তৈরি। সে সময় ফরাসি ঔপনিবেশ ছিল ভিয়েতনাম। বর্তমানে সেই পুরনো সময়ের রূপটিই যেন নতুন করে নিয়ে আসা হয়েছে এ এলাকায়।

সোনালি রঙের হওয়ায় সেতুটি ‘গোল্ডেন ব্রিজ’ নামে পরিচিত। সারা বিশ্ব থেকেই পর্যটকরা আসেন ভিয়েতনামে। তাদের অনেকেই সেতুটিকে দেখতে যাচ্ছেন। অবাক হচ্ছেন এর নির্মাণশৈলি দেখে। হিল স্টেশন হিসেবে পাহাড়ের ওপরে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতুটি তৈরি করা হয়।

আরো পড়ুন: বিশ্ববিস্মিত সেরা ২০টি উদ্ভট ও অবাক করা রেষ্টুরেন্ট!

বিশাল দুটি পাথুরে রঙের হাতের ওপর দাঁড়িয়ে আছে সেতুটি। আর এ কারণে ‘হ্যান্ড অফ গড’ বলছেন অনেকেই। ঘন জঙ্গলের মধ্য দিয়ে বেরিয়ে এসেছে কংক্রিটের প্রকাণ্ড দুটি হাত। দুই হাত ধরে রেখেছে সোনালি রঙের সেতু, সেতুর ওপর দর্শক-পর্যটকের দল। নতুনভাবে সংস্কারের পর গত জুন মাসে ডানাং এর কাছে এই সেতুটি খুলে দেওয়া হয়।

প্রতিদিনের আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গেই থাকুন: প্রতিদিনের স্বাস্থ্য টিপস